মাদ্রাসা মাঠে জলাবদ্ধতা; নিষ্কাশনে নিরুপায় মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ

9

মাদ্রাসা মাঠে জলাবদ্ধতা; নিষ্কাশনে নিরুপায় মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ

মোঃ জাহিদ আলী, নাটোর

নাটোরের গুরুদাসপুরের আলিপুর দাখিল মাদ্রাসা। যেখানে জলাবদ্ধতায় ডুবে থাকে বছরের প্রায় ৬ মাস। মাঠের নিচু জায়গা ও অপরিকল্পিত ভাবে পুকুর খননের কারণে এ সমস্যা সৃষ্টি হয়।

আলিপুর দাখিল মাদ্রাসা ১৯৬৭ সালে উপজেলা সদর হতে ২৪ কিলোমিটার পশ্চিমে আহমেদপুর-বড়াইগ্রাম সড়ক সংলগ্ন আলীপুর গ্রামে প্রতিষ্ঠিত হয়।  মরহুম আলহাজ্ব আব্দুল কাদের মুন্সি ও তার ছোট ভাই মরহুম ইব্রাহিম এলাকার অবহেলিত মানুষদের ধর্মীয় শিক্ষার কথা ভেবে ১ একর জমির ওপর মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠার পর থেকে মাদ্রাসায় শিক্ষার্থীদের ফোরকানিয়া পাঠদান করানো হতো। পরে এবতেদায়ী হওয়ার পর প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদান শুরু হয়। খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলে ১৯৯৩ সালে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ হয়ে যায় এরপর ১৯৯৬ সালে স্থানীয় সাংসদ আলহাজ্ব অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস এমপির সহযোগিতায় প্রতিষ্ঠানটি পুনরায় চালু হয়। বর্তমানে এই মাদ্রাসায় ২০ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা এবং ২৭০ জন ছাত্র-ছাত্রী সরকারের সকল নিয়ম-নীতি মেনে পাঠদান করছে।আর প্রতিবছর সন্তোষজনক ফলাফলও লাভ করে আসছে তারা।

শ্রেণিকক্ষ সহ মাঠে জলাবদ্ধতার কারনে  শিক্ষার্থীদের পাঠদান করানো সম্ভব হয় না। তারপরও দীর্ঘ প্রায় ২০ বছর যাবৎ ২০ জন শিক্ষক শিক্ষিকা বিনা বেতনে মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের পাঠদান করে আসছে। এখনো প্রতিষ্ঠানটি এমপিওভুক্ত হয়নি আর কতদিন এভাবে বিনা বেতনে পাঠ দান করে মানবেতর জীবন কাটাবে শিক্ষকরা?

Youtube Video Here :